৩২ ঘণ্টা ধরে চাপা পড়ে থাকা কিশোরীকে নিয়ে হইচই, অতঃপর…

৭.১ মাত্রার ভূমিকম্পে নড়ে গেছে পুরো মেক্সিকো। প্রায় ৩০০ মানুষ নিহত হয়েছে।
এখনো চলছে উদ্ধার কার্যক্রম। ধ্বংসস্তুপে আটকে থাকাদের মধ্যে ছিলেন ফ্রিদা সোফিয়া নামের এক কিশোরীও। তাকে বের করতেও কতই না ঘাম ঝরেছে উদ্ধার কর্মীদের। ৩২ ঘণ্টা পরও চলেছে সেই উদ্ধার কার্যক্রম। পুরো মেক্সিকো তার জীবিত বের হওয়ার অপেক্ষায় ছিল। ফ্রিদাও নাকি উদ্ধারকর্মীদের বলেছিল, ‘আমি তৃষ্ণার্ত। তাড়াতাড়ি করো। বেশি সময় নিও না। ‘

সামাজিক যোগাযোগ ব্যবহারকারীরা আরও সরব ছিলেন। সবাই তার জন্য দোয়া করেছেন। জানান দিয়েছেন, প্রতিমুহূর্তেই ফ্রিদার সঙ্গেই আছে তারা। মূলত একটি বিদ্যালয় ভূমিকম্পে ধসে গেলে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রাণ হারান। চাপা পড়া অনেককে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

দীর্ঘ সময় পর বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ফ্রিদা সোফিয়া নামে বিদ্যালয়ে কোনো শিক্ষার্থীই নেই। ফ্রিদা বাবা-মা কারও খোঁজও পাওয়া যায়নি। পরে জানা গেছে, পুরো ব্যাপারটাই ভুল বোঝাবুঝি! সূত্র : বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *