রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেয়ার প্রস্তাব মিয়ানমারের

দুই পক্ষ একটি জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের প্রস্তাবে সম্মত হয়েছে

দুই পক্ষ একটি জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের প্রস্তাবে সম্মত হয়েছে

মিয়ানমার রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফিরিয়ে নেয়ার প্রস্তাব করেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের সাথে আলোচনার জন্য মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির দপ্তরের মন্ত্রী কিউ টিন্ট সোয়ে’র সাথে বৈঠক শেষে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এই কথা জানান।

মি. আলী বলেন প্রত্যাবসন প্রক্রিয়ার সার্বিক তত্বাবধানের জন্য দুই পক্ষ একটি জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের প্রস্তাবে সম্মত হয়েছে।

“জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের কম্পোজিশন(গঠন) কী হবে সেটা মিয়ানমার এবং বাংলাদেশ ঠিক করবে” বলেন তিনি।

এই প্রত্যাবসন প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে সহায়তার লক্ষে বাংলাদেশ একটি দ্বিপাক্ষিক চুক্তির প্রস্তাব করেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রী জানান “আমরা এই দ্বিপাক্ষিক চুক্তির একটা খসড়া তাদের কাছে (মিয়ানমারের মন্ত্রীর কাছ) হস্তান্তর করেছি”।

মন্ত্রী জানান বৈঠকে সীমান্ত ও নিরাপত্তা সহযোগিতার বিষয়ে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। এবং বাংলাদেশ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি পুনব্যক্ত করেছে।

“বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী খুব শীঘ্রই মিয়ানমারে যাবেন বলে আশা করছি” বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। “উভয় পক্ষ শান্তিপূর্ণ উপায়ে এই সমস্যার সমাধান করতে চায়”।

রোহিঙ্গাদের কবে ফিরিয়ে নেয়া হবে এবং কতদিন সময় লাগবে এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন “জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপে সেই বিষয় গুলো ঠিক করা হবে”।

তবে এটা গঠনের কোন সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়নি।

তবে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে দ্বিপাক্ষিক চুক্তির যে খসড়া মিয়ানমারকে দেয়া হয়েছে তার বিষয়বস্তু কী সে বিষয়ে কিছু জানান নি তিনি।

বৈঠক শেষে মিয়ানমারের তরফ থেকে কোন বক্তব্য দেয়া হয় নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *