বাংলা চলচ্চিত্রের ‘মিঞা ভাই’ খ্যাত অভিনেতা ফারুক। অভিনয়ে নিয়মিত না থাকলেও চলচ্চিত্রকে ছেড়ে যাননি তিনি। বর্তমানে এফডিসি কেন্দ্রীক সংগঠন ‘চলচ্চিত্র পরিবার’-এর আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তবে এবার সরাসরি চলচ্চিত্র নির্মাণেও পা রাখতে যাচ্ছেন তিনি।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আসছে বছর থেকেই চলচ্চিত্র নির্মাণে হাত দিবেন ফারুক, এমনটাই তিনি জানালেন চ্যানেল আই অনলাইনকে। কবে নাগাদ চলচ্চিত্র নির্মাণে হাত দিবেন এমন প্রশ্নে ফারুক বলেন, বললেইতো হুট করে আর নির্মাণে নেমে যাওয়া যায় না। তবে আমি হয়তো সামনের বছরেই সিনেমা নির্মাণ শুরু করবো। আসলে কোনো বেড পলিটিক্স-এ জড়াতে চাই না। আগে এফডিসিতে ভালো মেশিন আসুক, আমিতো আর শর্টফিল্ম বানাবো না ফলে একটু সময় লাগবে। টেবলি ওয়ার্ক আছে, গল্প ঠিক হবে, আর্টিস্টের সিডিউলের ব্যাপার আছে। সবকিছু ঠিক করেই নির্মাণে নামবো।

সিনেমার চিত্রনাট্য কার জানতে চাইলে ফারুক আরো বলেন, তিনটা সিনেমা নির্মাণ করবো। সবগুলোই আমার চিত্রনাট্য। তবে সিনেমার সংলাপের দায়িত্বে থাকবে আমজাদ হোসেন। আসলে আমরা সবাই মিলে কাজটি করতে চাই। গোছালোভাবেই করতে চাই। আর আমার ছবিতে গান করবে গাজী মাজহার। সিওর না, কিন্তু তাকে আমি রিকুয়েস্ট করবো। ছবি বানাতে হলে মিউজিক লাগবে। বানানো মিউজিক দিয়ে আমি সিনেমা করবো না। আলাউদ্দিন আলী, শেখ সাদী, আলম খানের মতো মানুষ আছেন, মিউজিক নিয়ে তাদের সঙ্গে আমি কথা বলবো। এইসব ট্যালেন্ট মানুষদের নিয়ে আমি কাজ করতে চাই

মিউজিক, স্ক্রিপ্ট, ডায়ালগ সবইতো কে করবে ঠিক করে ফেলেছেন। তাহলে আপনার ছবিতে আর্টিস্ট কারা থাকবে এটা কি বলা যাবে, এমন প্রশ্নে চিত্রনায়ক ফারুক হেসে বলেন- না। আর্টিস্ট এখনই জানাচ্ছি না। সবকিছু ঠিক করে তারপর আর্টিস্ট কারা থাকবে সেটা জানাবো।

প্রসঙ্গত, বেশ কিছুদিন ধরেই চলচ্চিত্র থেকে যেনো এক প্রকার দূরেই ছিলেন তার সমকালীন আরেক ব্যক্তিত্ব চিত্রনায়ক আলমগীর। কিন্তু গেল মাসে ‘একটি সিনেমার গল্প’ নামে একটি ছবি পরিচালনা ও প্রযোজনার মধ্য দিয়ে ফিরলেন আপন ঘরে। আর এবার নির্মাণে নামছেন ফারুক। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চলচ্চিত্রের সিনিয়র শিল্পীরা বাংলা চলচ্চিত্রের দুর্দিনে এভাবে এগিয়ে এলে হয়তো দ্রুতই ইন্ডাস্ট্রি থেকে সংকট দূর হবে।