নেতৃত্ব হারাচ্ছেন মুশফিক?

মুশফিকুর রহিম। ফাইল ছবি

গত বছর তার নেতৃত্বেই ইংল্যান্ডকেও হারিয়েছিল বাংলাদেশ। কিছুদিন আগে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে হারিয়েছিল লাল-সবুজের দল। শুধু তাই নয়, এখন পর্যন্ত ৩৪টি ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে দারুণ সাফল্য এনে দিয়েছেন তিনি। তার অধিনায়কত্বে বাংলাদেশ সাতটি জয় পেয়েছে, নয় ম্যাচে ড্র করেছে এবং ১৭ ম্যাচে হেরেছে। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে সফল হলেও এখন তার নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে! শোনা যাচ্ছে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের পরই অধিনায়কত্ব হারাতে পারেন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলমান সিরিজের প্রথম ম্যাচে বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় টেস্টেও একই দশা, খুব একটা ভালো খেলতে পারছে না দল। দলের এই বেহাল অবস্থায় মুশফিকের অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অনেকেই। বিসিবির এক সূত্রে জানা গেছে, আগামী ডিসেম্বরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের আগেই নতুন অধিনায়ক নির্বাচন করা হতে পারে।

এরই মধ্যে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে, কে হতে পারেন পরবর্তী টেস্ট অধিনায়ক। মূলত আলোচনায় আছেন তিনজন। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ। সাকিব এর আগে নয় টেস্টে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। পরে অবশ্য নেতৃত্ব হারান তিনি শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে। তাই আবার তাকে টেস্টের নেতৃত্বে ফিরিয়ে আনা হবে কি না, সেটা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। অবশ্য তিনি এখন বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক।

আর তামিম ইকবাল এখন বাংলাদেশ টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক। সাকিবকে নেতৃত্বে ফিরিয়ে আনা না হলে এই বাঁহাতি ওপেনারের ওপর দায়িত্ব বর্তালে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। মুশফিকের অনুপস্থিতিতে তিন অবশ্য এক ম্যাচে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, এ বছর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সে ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল।

আলোচনায় আছে মাহমুদউল্লাহর নামও। তিনি কখনোই বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব না দিলেও ঘরোয়া আসরে তার নেতৃত্ব বেশ প্রশংসিত হয়েছে বিভিন্ন সময়ে। তবে পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতার অভাবের কারণে তাঁকে হয়তো এই গুরুদায়িত্ব নাও দেওয়া হতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত মুশফিককে বাদ দেওয়া হবে কি না, আর বাদ দেওয়া হলেও কে পান এই দায়িত্ব সেটা দেখার জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *